Login or Register to make a submission.

Submission Preparation Checklist

As part of the submission process, authors are required to check off their submission's compliance with all of the following items, and submissions may be returned to authors that do not adhere to these guidelines.
  • The submission has not been previously published, nor is it before another journal for consideration (or an explanation has been provided in Comments to the Editor).
  • The submission file is in OpenOffice, Microsoft Word, or RTF document file format.
  • Where available, URLs for the references have been provided.
  • The text is single-spaced; uses a 12-point font; employs italics, rather than underlining (except with URL addresses); and all illustrations, figures, and tables are placed within the text at the appropriate points, rather than at the end.
  • The text adheres to the stylistic and bibliographic requirements outlined in the Author Guidelines.
  • আমার লেখাটি অন্য কোথাও ছাপানোর জন্য প্রেরণ করা হয়নি।

Author Guidelines

ইসলামী আইন ও বিচার পত্রিকায় লেখা প্রকাশের নিয়মাবলি
ইসলামী আইন ও বিচার পত্রিকা (ISSN-1813-0372) বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক নিবন্ধিত (রেজি. নং: DA-6100) বাংলাদেশ ইসলামিক ল’ রিসার্চ এন্ড লিগ্যাল এইড সেন্টার-এর একটি ত্রৈমাসিক একাডেমিক রিসার্চ জার্নাল। যা প্রতি তিন মাস অন্তর, (জানুয়ারি-মার্চ, এপ্রিল-জুন, জুলাই-সেপ্টেম্বর, অক্টোবর-ডিসেম্বর) নিয়মিত প্রকাশিত হয়। এ জার্নালে জড়িত রয়েছেন একটি দক্ষ এডিটরিয়াল বডি, অভিজ্ঞ সম্পাদনা পরিষদ এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক শিক্ষাবিদগণের সমন্বয়ে একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন এডভাইজারি বোর্ড। পত্রিকাটি দেশের অধিকাংশ সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এবং উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট বিভাগে গবেষণা পত্রিকা হিসেবে স্বীকৃত। একে আন্তর্জাতিক মানের গবেষণা জার্নালে উন্নীত করার লক্ষ্যে প্রিন্ট ভার্সনের পাশাপাশি অনলাইন ভার্সনও শুরু হয়েছে। এমতাবস্থায় জার্নালে প্রকাশের জন্য দেশ-বিদেশের বাংলাভাষী শিক্ষাবিদ, আইনবিদ, অধ্যাপক ও গবেষকগণকে গবেষণা প্রবন্ধ/বুক রিভিউ প্রেরণের অনুরোধ করা হচ্ছে।


প্রবন্ধ প্রণয়নের উদ্দেশ্য


প্রবন্ধ প্রণয়নের ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত উদ্দেশ্যসমূহ বিবেচনায় আনতে হবে:
ক. আইন ও বিচারসহ সামগ্রিক ইসলামী বিধান সম্পর্কে জনমনে আগ্রহ সৃষ্টি করা ও গণসচেতনতা তৈরি করা;
খ. ইসলামী জীবনবিধান সম্পর্কে পুঞ্জিভূত বিভ্রান্তি দূর করা;
গ. মুসলিম শাসনামলের ইসলামী আইন ও বিচারের প্রায়োগিক চিত্র তুলে ধরা;
ঘ. সমসাময়িক ও নতুন নতুন সমস্যার ইসলামী সমাধান উপস্থাপন;
ঙ. সমাজের সর্বস্তরে ইনসাফ ও মানবাধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রচলিত ব্যবস্থার ঘাটতি ও ত্রুটিগুলো চিহ্নিত করে সংস্কারের সুপারিশ পেশ।


প্রবন্ধের বিষয়বস্তু
(১) এ জার্নালে ইসলামের অর্থনীতি, সমাজনীতি, রাষ্ট্রনীতি, আইনতত্ত্ব, বিচারব্যবস্থা, ব্যাংক, বীমা, শেয়ারব্যবসা, আধুনিক ব্যবসায়-বাণিজ্য, ফিক্হশাস্ত্র, ইসলামী আইন, মুসলিম শাসকদের বিচারব্যবস্থা, মুসলিম সমাজ ও বিশ্বের সমসাময়িক সমস্যা ও এর ইসলামী সমাধান এবং তুলনামূলক আইনী ও ফিকহী পর্যালোচনামূলক প্রবন্ধকে গুরুত্ব দেয়া হয়।
(২) জার্নালে সর্বোচ্চ ২০০০ শব্দে গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টারি গ্রন্থ পর্যালোচনাও প্রকাশ করা হয়। এ ক্ষেত্রে ইসলামী আইন ও বিচার বিষয়ক গ্রন্থ অগ্রাধিকার দেয়া হয়। প্রবন্ধের ভাষা ও বানান রীতি
(১) প্রবন্ধটি বাংলা ভাষায় রচিত হতে হবে। তবে প্রয়োজনে ভিন্ন ভাষার উদ্ধৃতি প্রদান করা যাবে।
(২) প্রবন্ধ রচনার ক্ষেত্রে বাংলা একাডেমি প্রণীত প্রমিত বাংলা বানানের নিয়ম অনুসরণ করতে হবে, তবে আরবী শব্দের ক্ষেত্রে ইসলামী ভাবধারা অক্ষুণ্ন রাখতে হবে।
পাণ্ডুলিপি তৈরি
(১) পাণ্ডুলিপি অবশ্যই লেখক/লেখকগণের মৌলিক গবেষণা (Original Research) হতে হবে। অন্যের লেখা থেকে গৃহীত উদ্ধৃতির পরিমাণ প্রবন্ধের একচতুর্থাংশের কম হতে হবে।
(২) যৌথ রচনা হলে আলাদা পৃষ্ঠায় লেখকগণের কে কোন অংশ রচনা করেছেন বা প্রবন্ধ প্রণয়নে কার অবদান কতটুকু তার বিবরণ দিতে হবে।
(৩) প্রবন্ধের শব্দসংখ্যা সর্বনিম্ন ৩০০০ (তিন হাজার) এবং সর্বোচ্চ ৮০০০ (আট হাজার) এর মধ্যে হতে হবে। কম্পিউটার কম্পোজ করার জন্য বাংলা বিজয় কী-বোর্ড এর Sutonny MJ অথবা ইউনিকোড কী-বোর্ড Solaimanlipi এর ফন্ট ব্যবহার করতে হবে।
প্রবন্ধের কাঠামো



  • সারসংক্ষেপ: প্রবন্ধের শুরুতে ১০০-১৫০ শব্দের মধ্যে একটি সারসংক্ষেপ (Abstract) থাকতে হবে। এ সারসংক্ষেপে প্রবন্ধের উদ্দেশ্য, প্রবন্ধে ব্যবহৃত গবেষণা পদ্ধতি ও গবেষণান্তে প্রাপ্ত ফলাফল সম্পর্কে ইঙ্গিত থাকবে।

  • মূলশব্দ: সর্বাধিক ৫টি মূলশব্দ (Keywords) উল্লেখ করতে হবে।

  • ইংরেজি অনুবাদ: প্রবন্ধের শিরোনাম, লেখকের নাম, সারসংক্ষেপ ও মূলশব্দ বাংলার পাশাপাশি ইংরেজি অনুবাদও দিতে হবে।

  • ভূমিকা: প্রবন্ধের ভূমিকায় বিষয়ের গুরুত্ব, তাৎপর্য ও প্রবন্ধ রচনার যৌক্তিকতা সংক্ষেপে উপস্থাপন করতে হবে।

  • মূল আলোচনা: মূল আলোচনায় অবশ্যই লেখকের নিজস্ব চিন্তার প্রতিফলন ঘটবে এবং প্রবন্ধের বিষয়বস্তু কেন্দ্রিক হতে হবে। প্রবন্ধ প্রণয়নের ক্ষেত্রে পূর্বের সাহিত্য কর্ম থেকে কোন সহযোগিতা নেয়া হলে বস্তুনিষ্ঠতার সাথে যথাযথ উদ্ধৃতি প্রদান করতে হবে। প্রবন্ধে অনুসৃত গবেষণা পদ্ধতি অনুযায়ী যথার্থ ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ অন্তর্ভুক্ত হতে হবে।

  • উপসংহার: প্রবন্ধ থেকে প্রাপ্ত ফলাফল, বর্তমান প্রেক্ষাপটে তা বাস্তবায়নের গুরুত্ব ও উপকারিতা এবং আইনের ইসলামিকরণে এর ভূমিকা ও সুপারিশ তুলে ধরতে হবে।


উদ্ধৃতি উপস্থাপন নীতিমালা



  • একাডেমিক চৌর্যকর্ম (Plagiarism) পরিত্যাগের জন্য ইসলামী আইন ও বিচার জার্নালে উদ্ধৃতি উপস্থাপনের ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত নীতিমালা অনুসরণ আবশ্যিক:

  • হুবহু/প্রত্যক্ষ উদ্ধৃতি ৩০ শব্দের কম হলে চলমান লাইনে উভয় পাশে উদ্ধৃতি চিহ্ন দিয়ে এবং ৩০ শব্দের বেশি হলে মূল লেখা থেকে এক স্পেস নিচে ভিন্ন প্যারায় দুই পাশে অতিরিক্ত মার্জিন রেখে উল্লেখ করতে হবে। কোন সূত্র থেকে একই স্থানে অর্ধ পৃষ্ঠার অধিক হুবহু উদ্ধৃতি গ্রহণযোগ্য নয়।

  • উদ্ধৃতি উপস্থাপনের ক্ষেত্রে বাক্যের মধ্যকার এক বা একাধিক শব্দ বা কিছু অংশ উহ্য রাখার প্রয়োজন হলে পরপর অনধিক তিনটি বিন্দু (...) উল্লেখ করতে হবে।

  • এ পত্রিকায় রেফারেন্স (ইন টেক্সট উদ্ধৃতি ও গ্রন্থপঞ্জি) উল্লেখের ক্ষেত্রে Chicago Manual of Style এর Author-Date পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। এর বিস্তারিত বর্ণনা নিম্নরূপ:


ইন-টেক্সট উদ্ধৃতি
ইন-টেক্সট (In-text) বা টেক্সেটের মধ্যে উদ্ধৃতি প্রদানের স্থানে বন্ধনীর মধ্যে গ্রন্থকার/প্রবন্ধকারের নামের শেষাংশ ও সূত্রের প্রকাশকাল এবং পৃষ্ঠা নং ইংরেজি প্রতিবর্ণায়নে উল্লেখ করতে হবে। গ্রন্থ/সূত্রের পূর্ণ বিবরণ টেক্সট বা পাদটিকায় উল্লেখ করা হবে না, বরং প্রবন্ধের শেষে তথ্যসূত্র/গ্রন্থপঞ্জি অংশে উল্লেখ করতে হবে। তথ্যসূত্র/গ্রন্থপঞ্জি
প্রবন্ধের শেষে প্রবন্ধটি রচনার ক্ষেত্রে যেসব গ্রন্থ বা সূত্র থেকে সহযোগিতা নেয়া হয়েছে তার একটি তালিকা প্রদান করতে হবে। ইংরেজি ব্যতীত অন্যভাষার সূত্রের ক্ষেত্রে ইংরেজি প্রতিবর্ণায়নে উক্ত সূত্রের বর্ণনা উল্লেখ করতে হবে এবং তা ইংরেজি বর্ণানুক্রমে বিন্যস্ত করতে হবে।
উদাহরণ:
ইসলামী আইন ও বিচার জার্নালে বিভিন্ন উৎস থেকে উদ্ধৃতি উপস্থাপনের উদাহরণ নিম্নরূপ:
১. আল-কুরআন থেকে:
আল-কুরআন, সূরার ক্রমিক নং: আয়াত নং; যেমন: (Al-Quran: 2:1-5)
২. হাদীস থেকে
ইন টেক্সট উদ্ধৃতি (ইমামের নামের শেষাংশ গ্রন্থ প্রকাশের সাল, হাদীস নং) যেমন: (Al-Bukhārī 2004, 110)
গ্রন্থপঞ্জি: ইমামের নামের শেষাংশ, নামের বাকি অংশ. প্রকাশকাল. বাঁকা অক্ষরে গ্রন্থের শিরোনাম. প্রকাশের স্থান: প্রকাশনা সংস্থা.
যেমন: Al-Bukhārī, Abū ‘Abdullah Muhammad Ibn Ismā‘il. 2004. al-Jāmi al-Sahīh. Beirut: Dar al-Kutub al-‘Ilmiyyah.
 ৩. মৌলিক গ্রন্থ থেকে
ইন টেক্সট উদ্ধৃতি: (গ্রন্থকারের নামের শেষাংশ গ্রন্থ প্রকাশের সাল, পৃষ্ঠা নং) যেমন: (Mansur 2004, 110)
গ্রন্থপঞ্জি: গ্রন্থকারের নামের শেষাংশ, নামের বাকি অংশ. প্রকাশকাল. বাঁকা অক্ষরে গ্রন্থের শিরোনাম. প্রকাশের স্থান: প্রকাশনা সংস্থা. যেমন: Mansur, Mohammad Ali. 2010. Bichar Bivager Sadhinatar Itihas. Dhaka: Bangladesh Islamic Law Research Centre.
 ৪. অনূদিত গ্রন্থ থেকে
ইন টেক্সট উদ্ধৃতি: (গ্রন্থকারের নামের শেষাংশ গ্রন্থ প্রকাশের সাল, পৃষ্ঠা নং) যেমন: (Palanpuri 2004 110)
গ্রন্থপঞ্জি: গ্রন্থকারের নামের শেষাংশ, নামের বাকি অংশ. প্রকাশকাল. বাঁকা অক্ষরে গ্রন্থের শিরোনাম. অনুবাদকের নাম. প্রকাশের স্থান: প্রকাশনা সংস্থা. যেমন: Palanpuri, Sayed Ahmad. 2009. Shariah Bishoye Siddanta daner Nitimala. Translated by Md. Abdullah. Dhaka: Islamic Foundation.
 ৫. জার্নাল থেকে
ইন টেক্সট উদ্ধৃতি: (প্রবন্ধকারের নামের শেষাংশ জার্নাল প্রকাশের সাল, পৃষ্ঠা নং) যেমন: (Jahangir 2006, 55)
গ্রন্থপঞ্জি: প্রবন্ধকারের নামের শেষাংশ, নামের বাকি অংশ. প্রকাশকাল. “উদ্ধৃতিচিহ্নের মধ্যে প্রবন্ধের নাম”বাঁকা অক্ষরে জার্নালের শিরোনাম ভলিউম/বর্ষ:ইস্যু/সংখ্যা, পৃষ্ঠা থেকে-পৃষ্ঠা পর্যন্ত. যেমন: Jahangir, Khondakar Abdullah. 2006. "Islamer Itihase Ugroponthi Dol Abong Tader Somporke Sahabaye Kiramer Dristivongi" Islami Ain O Bichar 02:08,  09-36.
 * অনলাইন জার্নালের ক্ষেত্রে প্রবন্ধকারের নামের শেষাংশ, নামের বাকি অংশ. প্রকাশকাল. “উদ্ধৃতিচিহ্নের মধ্যে প্রবন্ধের নাম” বাঁকা অক্ষরে জার্নালের শিরোনাম  ভলিউম/বর্ষ:ইস্যু/সংখ্যা, পৃষ্ঠা থেকে-পৃষ্ঠা পর্যন্ত. তথ্য সংগ্রহের মাস তারিখ, বছর. DOI অথবা URL ঠিকানা. যেমন: Chowdhury, Sayed Rashed Hasan. 2016. "Sustainable Development: An Islamic Analysis" Islami Ain O Bichar 12:47, 53-83. Date accessed: Dec 29, 2016. <http://www.islamiainobichar. com/index.php/iab/article/view/4>.
 . দৈনিক পত্রিকা থেকে
ইন টেক্সট উদ্ধৃতি:
ক. নিবন্ধের ক্ষেত্রে: (নিবন্ধকারের নামের শেষাংশ পত্রিকা প্রকাশের সাল, পৃষ্ঠা নং) যেমন: (Qayyum 2015, 16)
খ. রিপোর্ট ও তথ্যের ক্ষেত্রে: (বাকা অক্ষরে পত্রিকার নাম, তারিখ)  যেমন: (New Nation, Oct. 12, 2016)
গ্রন্থপঞ্জি:
ক. নিবন্ধকারের নামের শেষাংশ, নামের বাকি অংশ. প্রকাশকাল. “উদ্ধৃতিচিহ্নের মধ্যে প্রবন্ধের নাম” বাঁকা অক্ষরে পত্রিকার নাম, তারিখ. যেমন: Qayyum, Hassan Abdul. 2015. “Furfura Sharifer Pir Mujaddide Zaman Abu Bakr Siddique” Ittefaq, March 27.
খ. বাঁকা অক্ষরে পত্রিকার নাম, তারিখ(সমূহ). যেমন: New Nation, Oct. 12, 2016; Nov. 11, 2015; Jan. 05, 2013.
গ. অনলাইন থেকে তথ্য গ্রহণের ক্ষেত্রে উপরিউক্ত তথ্যের সাথে তথ্য সংগ্রহের মাস তারিখ, বছর. ওয়েব ঠিকানা.  যেমন: Qayyum, Hassan Abdul. 2015. “Furfura Sharifer Pir Mujaddide Zaman Abu Bakr Siddique” Ittefaq, March 27. Accessed Feb. 18, 2016. http://epaper.ittefaq. com.bd/?archiev= yes&arch_date=27-03-2015#
 ৭. অভিসন্দর্ভ
ইনটেক্সট উদ্ধৃতি: (গবেষকের নামের শেষাংশ, অভিসন্দর্ভ জমা প্রদানের সাল, পৃষ্ঠা নং) যেমন:  (Numan, 2016, 87)
গ্রন্থপঞ্জি: গবেষকের নামের শেষাংশ, নামের বাকি অংশ. গবেষণাপত্র জমা প্রদানের সাল. “উদ্ধৃতিচিহ্নের মধ্যে থিসিস শিরোনাম”. পিএইচডি/এমফিল/মাস্টার্স থিসিস. বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম. যেমন: Numan, Md. Abdllah. 2016. “Idaratus Suyulah fil Masarif al-Islamiyyah: Dirasah Fiqhiyyah Muqaranah”. Phd Thesis. International Islamic University Islamabad
৮. ইন্টারনেট
কর্পোরেট ওয়েব পেজ:
ইনটেক্সট: (পেজের নাম তথ্য সংগ্রহের বছর) যেমন: (wikipedia 2016)
গ্রন্থপঞ্জি: পেজের নাম. তথ্য সংগ্রহের বছর. “উদ্ধার চিহ্নের মধ্যে পয়েন্টের নাম”. সর্বশেষ পরিমার্জনের তারিখ/তথ্য সংগ্রহের মাস তারিখ. ওয়েব ঠিকানা. যেমন: Wikipedia. 2016. “Islamic Foundation Bangladesh”. Last Modified December 28,  https://en.wikipedia.org/ wiki/Islamic_Foundation_Bangladesh
সাধারণ ওয়েব পেজ:
ইনটেক্সট: (পেজের নাম, তথ্য সংগ্রহের বছর) যেমন: (Banglapedia 2016)
গ্রন্থপঞ্জি: পেজের নাম. তথ্য সংগ্রহের বছর. তথ্য সংগ্রহের মাস তারিখ. ওয়েব ঠিকানা. যেমন:  Banglapedia. 2016. Accessed Feb. 18, 2016.  http://bn.banglapedia.org/ index.php?title= প্রধান_পাতা


ব্লগ
ইনটেক্সট: (ব্লগারের নামের শেষ অংশ, ব্লগ প্রকাশের বছর) যেমন: (Posner 2010)
গ্রন্থপঞ্জি: ব্লগারের নামের শেষ অংশ, নামের বাকি অংশ. ব্লগ প্রকাশের বছর. “উদ্ধার চিহ্নের মধ্যে নিবন্ধ/ব্লগের নাম” মূল ব্লগ পেজের নাম. তথ্য সংগ্রহের মাস তারিখ, বছর. ওয়েব ঠিকানা. যেমন: Posner, Richard. 2010. “Double Exports in Five Years?” The Becker-Posner Blog, February 21. http://uchicagolaw.typepad.com/beckerposner/2010/02/double-exports-in-five-years-posner.html.
৯. অসম্পূর্ণ তথ্য
গ্রন্থকারের নামবিহীন: ইন টেক্সট ও গ্রন্থপঞ্জিতে গ্রন্থকারের নামের স্থানে N.A লিখতে হবে। যেমন: (N.A. 2010, 111)
প্রকাশের সালবিহীন: ইন টেক্সট ও গ্রন্থপঞ্জিতে সালের স্থানে N.D. লিখতে হবে। যেমন:  (Parnkil N.D., 22)
পৃষ্ঠা নং না থাকলে: ইন টেক্সটে পৃষ্ঠা নং এর স্থানে N.P লিখতে হবে। যেমন: (Rassel. 2001, N.P)
প্রকাশের স্থানবিহীন: গ্রন্থপঞ্জিতে প্রকাশের শহরের স্থানে N.P. লিখতে হবে। যেমন: ... (N.P: Bookstore.)
প্রকাশক বিহীন: গ্রন্থপঞ্জিতে প্রকাশকের স্থানে N.P. লিখতে হবে। যেমন: ... (Damascus: N.P.) 
১০. অন্যান্য উৎস


অন্যান্য উৎস থেকে উদ্ধতির ক্ষেত্রে(ইন টেক্সট উদ্ধৃতি/ গ্রন্থপঞ্জি) Chicago Manual of Style (১৬তম সংস্করণ, ২০১০) এর ১৫ অধ্যায়ে বর্ণিত পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। এ সর্ম্পকে http://www.chicagomanualofstyle.org/  tools_citationguide.html লিংকে প্রাথমিক তথ্য পাওয়া যাবে।


অনুবাদ নীতিমালা


কুরআন ও হাদীসের অনুবাদের ক্ষেত্রে ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত অনুবাদ অনুসরণ করে চলিত রীতিতে রূপান্তর করতে হবে। ভিন্ন ভাষার উদ্ধৃতির ক্ষেত্রে মূল TEXT সহ বাংলা অনুবাদ দিতে হবে।


 প্রবন্ধ জমাদান প্রক্রিয়া



  • পাণ্ডুলিপি কম্পিউটার কম্পোজ করে ইসলামী আইন ও বিচার জার্নালের নিজস্ব ওয়েব সাইটে www.islamiainobichar.com এ গিয়ে প্রদত্ত নির্দেশনার আলোকে আপলোড করতে হবে।

  • অথবা বিকল্প হিসেবে প্রবন্ধের সফট কপি সম্পাদকের ই-মেইলে (editor@islamiainobichar.com) পাঠাতে হবে এবং ইসলামিক ল’ রিসার্চের ই-মেইলে (islamiclaw_bd@yahoo.com) সিসি (c.c) করতে হবে।

  • ই-মেইলে প্রবন্ধ প্রেরণের ক্ষেত্রে লেখক/দেরকে এ মর্মে একটি প্রত্যয়নপত্র জমা দিতে হবে যে:


ক. জমাদানকৃত প্রবন্ধের লেখক তিনি/তারা; খ. প্রবন্ধটি ইতঃপূর্বে অন্য কোথাও কোনো আকারে বা ভাষায় মুদ্রিত/প্রকাশিত হয়নি কিংবা প্রকাশের জন্য অন্য কোথাও জমা দেয়া হয়নি; গ. এ জার্নালে প্রবন্ধটি প্রকাশ হওয়ার পর সম্পাদকের মতামত ব্যতীত অন্যত্র প্রকাশের জন্য জমা দেয়া হবে না; ঘ. প্রবন্ধে প্রকাশিত/বিবৃত তথ্য ও তত্ত্বের সকল দায়-দায়িত্ব লেখক/গবেষকগণ বহন করবেন। প্রতিষ্ঠান এবং জার্নালের সাথে সংশ্লি¬ষ্ট কেউ এর কোনো প্রকার দায়-দায়িত্ব বহন করবেন না।


প্রকাশের জন্য লেখা নির্বাচন



  • জমাকৃত প্রবন্ধ প্রকাশের জন্য কমপক্ষে দু’জন বিশেষজ্ঞ দ্বারা পিয়ার রিভিউ (Peer Review) করানো হয়।

  • রিভিউয়ের জন্য প্রেরণের সময় প্রবন্ধকারের নাম পরিচয় ও রিভিউয়ারগণের পরিচিতি সম্পূর্ণ গোপন রাখা হয় (Double Blind Review)।

  • রিভিউ রিপোর্ট এবং সম্পাদনা পরিষদের মতামতের ভিত্তিতে প্রবন্ধ প্রকাশের জন্য চূড়ান্ত করা হয়।


অন্যান্য জ্ঞাতব্য
১. প্রবন্ধ প্রকাশিত হলে লেখক/গণ জার্নালের ২ (দুই) কপি এবং প্রবন্ধের ৫ (পাঁচ) কপি অফপ্রিন্ট বিনামূল্যে পাবেন।
২. প্রকাশিত প্রবন্ধের ব্যাপারে কারো ভিন্নমত থাকলে এবং তা যুক্তিযুক্ত, প্রামাণ্য ও বস্তুনিষ্ঠ মনে করা হলে উক্ত সমালোচনা জার্নালে প্রকাশ করা হয়।
৩. প্রবন্ধ প্রকাশের জন্য প্রাথমিকভাবে গৃহিত হলে সম্পাদক ও রিভিউয়ারের নির্দেশনা অনুযায়ী লেখককে প্রবন্ধ সংশোধন করে পুনরায় জমা দিতে হয়, অন্যথায় তা প্রকাশ করা হয় না।
৪. জার্নালে প্রকাশিত প্রবন্ধের কপিরাইট সেন্টার সংরক্ষণ করবে। প্রবন্ধের লেখক তার প্রকাশিত প্রবন্ধ অন্য কোথাও প্রকাশ করতে চাইলে সম্পাদক-এর নিকট থেকে লিখিত অনুমতি নিতে হবে।
৫. সম্পাদনা পরিষদ প্রবন্ধে যে কোন প্রকার পরিবর্তন ও পরিমার্জন করার অধিকার রাখেন।
৬. যে কোন প্রবন্ধ প্রকাশ বা বাতিলের পূর্ণ অধিকার Editorial Team সংরক্ষণ করেন।
৭. এ সম্পর্কে কোন তথ্য জানার প্রয়োজন হলে www.islamiainobichar.com সাইটে, editor@islamiainobichar.com মেইলে কিংবা ০২-৯৫৭৬৭৬২/ ০১৭৬১৮৫৫৩৫৭ নাম্বারে যোগাযোগ করা যেতে পারে।